Saturday, October 27, 2007

কিবোর্ডের পুরোনো গল্প কিম্বা পুরোনো কিবোর্ডের গল্প

আপনাকে গল্পটা বলা দরকার। কিবোর্ডের গল্প।

এটা ঠিক গল্প না, কিছু উচ্ছিষ্ট দৃশ্যপরম্পরা, মাথার ভেতর। প্রথম দৃশ্য সাজাতে আমাদের লাগবে একজন চরিত্র, নাম দিলাম তার আজাদ। আর লাগবে একটা পুরোনো কম্পিউটার কিবোর্ড।

ধরা যাক, আজাদের কম্পিউটার কিবোর্ডটা পুরোনো, ময়লা হয়ে গেছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো সমস্যা হয়নি যন্ত্রটার। চালু কিবোর্ড। দোষ একটাই, পুরোনো, ময়লা এবং ফাংশন কম।

সুতরাং একদিন আসে ঝা-চকচকে মাল্টিমিডিয়া কিবোর্ড। পুরোনো কিবোর্ডের জায়গা হয় স্টোর রুমে। দিন যায়, নতুন কিবোর্ডে মজে যায় আজাদ।

মাসখানেক পর, এক রাতে, হঠাৎ বিগড়ে যায় নতুন কিবোর্ড। এত তাড়াতাড়ি নষ্ট হলো! ধ্যাত! পুরোনোটাই তো ভালো ছিল। স্টোর রুমে পুরোনো কিবোর্ডটা আনতে যায় সে।

আজাদ কিন্তু খুঁজে পায় না কিবোর্ডটা। কাউকে না বলে কখন কোথায় যে দূরে চলে গেছে কিবোর্ডটা, আমরা তা জানি না, জানার দরকার নেই। জানতে চাইলে, গল্পটা যৌক্তিকভাবে শেষ করার জন্য, আপনারা কেউ নিয়ে যেতে পারেন পুরোনো কিবোর্ডটা। পরে সময়মতো জানিয়ে দেবেন পাঠকদের।

যেকোনো সম্পর্কের বেলায় এটা সত্যি। সম্পর্কের আপাত প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে আমরা কেউ আজাদ হয়ে যাই। আর কাউকে কাউকে পুরোনো কিবোর্ডের চরিত্রে অভিনয় করতে হয়।

দুঃখিত পাঠিকা, আপনি গল্পটা পড়ে বিষণ্ণ হবেন না। কোনো রূপক হিসেবেও নেবেন না। এটা কিবোর্ড, নিতান্তই কিবোর্ডের গল্প।

আসলে গত দু দিন ধরে আমার নতুন কিবোর্ডের কিছু বোতাম কাজ করছে না, আবার ইদানীং খামাজ গানটা শুনছি, আর তার ভিডিও দেখছি, আর এইসব ভাবছি, আবোলতাবোল। মানুষ আর জড়তেও তো সম্পর্ক হয়। হয় না?

বস্তুত আমার টেবিলে আজ বিনয় মজুমদার, অদূরে ঋত্বিক ঘটকের অযান্ত্রিক ডিভিডি, হেডফোনে খামাজ এবং মনিটর জুড়ে ফেসবুকের কোনো প্রোফাইল।

___________________________
- ইশতিয়াক জিকো / ২৭ অক্টোবর ২০০৭, ঢাকা

2 comments:

Shammu said...

Kemon jano ogochhalo kintu precise. Pore bhalo laglo :)

আহাদিল said...

সুন্দর প্রকাশ।

Post a Comment